‌আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ জিএসটি নিয়ে দেশের ব্যবসায়ী মহলের একাংশের ক্ষোভ রয়েছে। বিরোধীরাও জিএসটি নিয়ে সরব হয়েছিল সরকারের বিরুদ্ধে। এবার জিএসটি নিয়ে উষ্মাপ্রকাশ করল আইএমএফ। জিএসটি–কে ভারতের একটি গুরুত্বপূর্ণ সংস্কার বললেও কর কাঠামো নিয়ে সন্তুষ্ট নয় আইএমএফ। সংস্থার পক্ষ থেকে তার বাৎসরিক রিপোর্টে বলা হয়েছে, জিএসটির ‌যে হার ধা‌র্য করা হয়েছে তা আরও সরল করা উচিত। কারণ জিএসটির হার বিভিন্নরকম হওয়ার ফলে জটিলতা তৈরি হচ্ছে। তাই সরকারের খরচও বাড়ছে।
২০১৭ সালের ১ জুলাই থেকে দেশে চালু করা হয় পণ্য পরিষেবা কর বা জিএসটি। আইএমএফ জানিয়েছে, জিএসটি  চালু করার ফলে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বেড়েছে। পাশাপাশি দামি পণ্যের দাম অনেকটাই কমেছে। এই ব্যবস্থা বদল করে সরল করা প্রয়োজন। কেন্দ্রীয় সরকারের বক্তব্য, ভোগ্যপণ্য ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের ওপরে কর একই হতে পারে না। এই নিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন খোদ প্রধানমন্ত্রীও। এখন জিএসটির ‌যে হার চালু রয়েছে সেখানে ১২–২৮ শতাংশ প‌র্যন্ত কর চাপানো হয়েছে। গয়না এবং রত্নের ওপরে ৩ শতাংশ কর ধা‌র্য করা হয়েছে। যা নিয়ে  আপত্তি জানিয়েছে বিভিন্ন মহল। সম্প্রতি বিভিন্ন রাজ্যের অর্থমন্ত্রীরাও কেন্দ্রের কাছে আবেদন করেছে জিএসটি জুড়েই এমআরপি ধ‌া‌র্য করা হোক। এতে করের জটিলতা কমবে। কারণ এমআরপি হল কোনও পণ্যের মূল। তার ওপরে নতুন করে কর বসানো উচিত নয়।

জনপ্রিয়

Back To Top