আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ শুক্রবার গোয়ায় জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠকে বসেছিলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। তারপরই বেশ কিছু জিনিসের দামের উপর থেকে জিএসটি কর কমানো হয়। আবার কিছু ক্ষেত্রে বাড়ানো হয় কর। কিন্তু যে গাড়িশিল্পের অবস্থা তথৈবচ, সেই গাড়িশিল্পকে বাঁচাতে কোনও পদক্ষেপই করা হল না। অর্থাৎ গাড়ি নির্মানের সঙ্গে যুক্ত সংস্থাগুলোর দাবি মেনে জিএসটি কমানো হল না। আগের হারই রেখে দেওয়া হল। ফলে কার্যত আরও বিপাকে পড়ল গাড়িশিল্প। 
এযাবৎকালে গাড়ি বিক্রির হার নেমে গিয়েছে সবচেয়ে নিচে। ছাঁটাই হয়েছে লক্ষাধিক কর্মী। বন্ধের মুখে বেশ কিছু নামী সংস্থা। কোনও কোনও সংস্থা খরচ সামলাতে বন্ধ রেখেছে উৎপাদন। এই পরিস্থিতিতে মনে করা হয়েছিল, গাড়িশিল্প বা অটোমোবাইল সেক্টরকে চাঙ্গা করতে জিএসটির হার কমানোর মতো একাধিক গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ করতে পারে সরকার। গাড়ি নির্মাতারাও সেই আশা করেছিলেন। তাঁরা জানিয়েছিলেন, উৎসবের মরশুমে সরকার জিএসটির হার কমালে অর্থাৎ ২৮ শতাংশ থেকে ১৮ শতাংশ করলে এবং তাঁরাও বেশ কিছু আকর্ষনীয় অফার দিলে ফের একবার চাঙ্গা হয়ে গাড়িশিল্প। সাধারণ মানুষও গাড়ি কেনার দিকে ঝুঁকবে। কিন্তু কোথায় কী!‌ কর্পোরেট করে ছাড় দিলেও গাড়িশিল্পের জন্য কার্যত কোনও ঘোষণাই করলেন না অর্থমন্ত্রী। ফলে পরিস্থিতিরও কোনও পরিবর্তনই হল না। এখন দেখার এই অবস্থায় আগামিদিনে কী পদক্ষেপ করে গাড়ি নির্মাতারা।   

জনপ্রিয়

Back To Top