আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফের ‌অর্থনৈতিক সঙ্কট ঠেকাতে ব্যর্থ মোদি সরকার। চলতি আর্থিক বছরের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে আর্থিক বৃদ্ধির হার (জিডিপি) এসে ঠেকল ৪.‌৫ শতাংশে, গত ছ’বছরে যা সর্বনিম্ন। শুক্রবার সরকারি নথি থেকে এমনই তথ্য উঠে এল। কেন্দ্রীয় সরকারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮-’১৯ অর্থবর্ষে ভারতের আর্থিক বৃদ্ধির হার ছিল ৬.৮ শতাংশ। চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ, শেষ ত্রৈমাসিকে আর্থিক বৃদ্ধির হার ৫.৮ শতাংশে গিয়ে ঠেকেছিল। ২০১৯–’‌২০ অর্থবর্ষের প্রথম ত্রৈমাসিকে আর্থিক বৃদ্ধির হার ৫ শতাংশে দাঁড়িয়েছিল। দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে অর্থাৎ জুলাই থেকে সেপ্টেম্বরে তার চেয়েও কমল আর্থিক বৃদ্ধির হার। এর আগে, ২০১৩ সালে শেষ ত্রৈমাসিকে আর্থিক বৃদ্ধির হার গিয়ে ঠেকেছিল ৪.৩ শতাংশে। তারপর এই প্রথম আর্থিক বৃদ্ধির হার এত নামল। 
শিল্পক্ষেত্র এবং বিশেষ করে আর্থিক ক্ষেত্র নিয়ে সম্প্রতি তীব্র উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। শিল্প ক্ষেত্রে এবং বিশেষ করে গাড়ি শিল্পে সঙ্কটের কথা উল্লেখ করে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন তাঁরা। গত ৭০ বছরে এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়নি বলেও জানিয়েছিলেন। সম্প্রতি মুডিসের একটি সমীক্ষায় বলা হয়েছিল, এ বছর দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে বৃদ্ধির হার ৫ শতাংশেরও নিচে নামতে পারে। কিন্তু বৃদ্ধির হারে এতটা পতন আশা করেননি কেউই। জিডিপির বৃদ্ধির শ্লথ গতির জন্য মূলত ভোগ্যপণ্যের ক্রেতা কম, দুর্বল বিনিয়োগ, সার্ভিস সেক্টরের খারাপ পারফরম্যান্সকেই দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা। সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে গাড়ি শিল্প। চাহিদা কম থাকায় শুধু গাড়ি উৎপাদনেই ব্যাপক কাটছাঁট হয়নি, কর্মী সঙ্কোচনের পথেও যেতে হচ্ছে গাড়িনির্মাতা সংস্থাগুলিকে। দু’লক্ষের বেশি মানুষ কাজ হারিয়েছেন। অর্থনীতি চাঙ্গা করতে একগুচ্ছ পদক্ষের ঘোষণা করেছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। কিন্তু কিছুতেই কাজ হচ্ছে না।

জনপ্রিয়

Back To Top