আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ইপিএফে কী সুদের হার কমছে?‌ এমনই আশঙ্কার কথা শোনা যাচ্ছে। যা নিয়ে এখন রীতিমতো হইচই শুরু হয়েছে। শ্রমমন্ত্রকের কাছে অর্থমন্ত্রকের পাঠানো একটি চিঠিকে কেন্দ্র করে ইপিএফে সুদের হার কমার আশঙ্কা তৈরি হল। কারণ ওই চিঠিতে এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ড অর্গানাইজেশনকে (ইপিএফও) সুদের হার পুনর্বিবেচনা করতে বলেছে কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রক। তাতেই জলঘোলা হয়েছে।
জানা গিয়েছে, ইপিএফও নথিভুক্ত ৮.৫ কোটি কর্মীর ভবিষ্যনিধি খাতে ২০১৮–১৯ অর্থবর্ষের জন্য ৮.৬৫ শতাংশ হারে সুদ দেওয়ার সুপারিশ করেছিল ইপিএফও’‌র অছি পরিষদ। পরিবর্তে সেই সুপারিশ নিয়ে কোনও সবুজ সংকেত না দিয়ে সুদের হার কমানোর প্রস্তাব উল্লেখ করে অর্থ মন্ত্রক একটি চিঠি পাঠায় শ্রম মন্ত্রককে। গত ১২ জুনের ওই চিঠির সূত্র ধরেই আশঙ্কা করা হচ্ছে ইপিএফে সুদ কমাতে পারে অর্থ মন্ত্রক। 
অর্থমন্ত্রকের যুক্তি, ইপিএফও তহবিলে যা বিনিয়োগের রিটার্ন পাওয়া গিয়েছে তা দিয়ে কর্মীদের ওই হারে সুদ দেওয়া উচিত হবে না। ইপিএফও যদি ৮.৬৫ শতাংশ হারে সুদ দেয় তবে ব্যাঙ্কগুলির পক্ষে সুদ কমানো কঠিন হবে এবং তার ফলে অর্থনীতিই ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

জনপ্রিয়

Back To Top