আজকালের প্রতিবেদন,দিল্লি: সকাল ১০টা ৪৫। গত দু’‌মাসের মতোই ঝিমোচ্ছিল শেয়ার বাজার। তারপর হঠাৎই সেনসেক্স আর নিফটি যেন আর শেয়ারসূচক থাকল না, হয়ে গেল হাউই। ১০ মিনিট কেটে গেল, ২০ মিনিট কেটে গেল, হাউই উঠতেই থাকল। এবং রুদ্ধশ্বাস গতিতে। ততক্ষণে সংবাদমাধ্যমের দৌলতে সারা দেশ জেনে গেছে কী ঘটেছে। জেনে গেছে, দেশের সংস্থাগুলির বাণিজ্যিক কর কমিয়ে করে দেওয়া হয়েছে ২২ শতাংশ, যা স্বাধীনতার পর সর্বনিম্ন। ফলে নতুন নতুন মানুষ ঢুকতে থাকলেন বাজারে। শেয়ার বাজারে শুরু হয়ে গেল অকাল দেওয়ালি। 
গতকাল বাজার বন্ধের সময় সেনসেক্স ছিল ৩৬,০৯৩ পয়েন্টে। আর আজ সকাল ১০টা ০৫ মিনিটে সেনসেক্স ছিল একই জায়গায়, ৩৬,১১৭ পয়েন্টে। অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের সাংবাদিক–সম্মেলন শুরু হওয়ার কথা ছিল সকাল ১০টায়। সেইদিকে অবশ্যই তাকিয়েছিল বাজার। সীতারামন এলেন সাড়ে ১০টায়। সেনসেক্স তখন ৩৬,১৫৫ পয়েন্টে। পৌনে ১১টায় সেনসেক্স উঠল ৩৬,২৩৮ পয়েন্টে। তেমন উল্লেখযোগ্য কিছু নয়। তারপর যা ঘটল, এক কথায় তা অবিশ্বাস্য। দশ মিনিটে সেনসেক্স পৌঁছোল ৩৬,৮৯৫ পয়েন্টে। ১১টা ১০ বরাবর সেনসেক্স পেরোল ৩৭ হাজার পয়েন্টে। সাড়ে ১১টায় ৩৭,৬৮৬ পয়েন্টে পৌঁছোল। তারপর সামান্য পতন। মনে হল হাউইয়ের দৌড় শেষ। না, ভুল। ১২টা ১৫ মিনিটে ৩৮ বাজার পয়েন্ট পেরিয়ে গেল সেনসেক্স। আবার ২০০ পয়েন্ট পতন। তারপর বেলা আড়াইটেয় ৩৮,৩৪১ পয়েন্টে দৌড় শেষ হল। খানিকটা নেমে বাজার বন্ধের সময় সেসসেক্স দাঁড়াল ৩৮,০১৪.‌৬২ পয়েন্টে।
সব মিলিয়ে একদিনে সেনসেক্স বেড়েছে ১৯২১.‌১৫ পয়েন্ট। শতাংশের হিসেবে ৫.‌৩২ শতাংশ। নিফটি ৫৬৯.‌৪০ পয়েন্ট বেড়ে পৌঁছেছে ১১,২৪৭.‌২০ পয়েন্টে।। শতাংশের হিসেবে সেটাও ৫.‌৩২ শতাংশ। গত এক দশকে শেয়ার বাজার একদিনে এমন উত্থান দেখেনি। আর যেহেতু এক দশক আগের তুলনায় বাজার এখন অনেক ওপরে, তাই এক দিনে সেনসেক্সের ১৯৮১ পয়েন্ট বা নিফটির ৫৬৯ পয়েন্ট বাড়া সর্বকালীন রেকর্ড। সবচেয়ে তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা হল, যে গাড়িনির্মাতা ও ব্যাঙ্কের শেয়ার এতদিন বাজারকে টেনে ধরছিল, আজ সেগুলোর শেয়ারই প্রথম হাউইয়ের মতো উঠতে শুরু করে। মারুতি, মাহিন্দ্রা, টাটা মোটরস, এইচডিএফসি ব্যাঙ্ক, আইসিআইসিআই ব্যাঙ্ক, রিলায়েন্স, টাটা স্টিল–এর শেয়ারের দাম এদিন সকাল সাড়ে ১১টার মধ্যেই ৯ শতাংশ পর্যন্ত বেড়ে গিয়েছিল। তার জেরেই সূচকগুলো হু হু করে বাড়তে শুরু করে। দিনের শেষে দেখা যায় এশার মোটরস, হিরো মোটোকর্প, ইন্ডাসইন্ড ব্যাঙ্ক, বাজাজ ফিনান্স, মারুতি সুজুকি ও এসবিআই–এর শেয়ারের দাম বেড়েছে ১০.‌১১ থেকে ১৩.‌৩৮ শতাংশ। শুক্রবার নিফটো অটো সেক্টরের সূচক বেড়েছে ৯.‌৯ শতাংশ। আর শেয়ার বাজারের অবিশ্বাস্য উত্থানের মধ্যে টাকার দামও এদিন ডলারপ্রতি ৭০ পয়সা কমে গিয়েছে। 
সাধারণত, দেওয়ালির সময় শেয়ার বাজার কিছুটা চাঙ্গা হয়। অনেকেই ওই সময়ে ধরে–রাখা কিছু শেয়ার বিক্রির কথা ভাবেন। এবার শেয়ার বাজারের দেওয়ালি হয়ে গেল পুজোর আগেই। সৌজন্য নির্মলা সীতারামন। যে ঘোষণা বাজেটে প্রত্যাশিত, তা যে তিনি এদিন সাংবাদিক–সম্মেলনেই করে দিলেন। ‌‌

মুম্বই স্টক এক্সচেঞ্জ। ছবি: পিটিআই

জনপ্রিয়

Back To Top