আইভি চট্টোপাধ্যায়: অমর মিত্র বাঙালি পাঠকের প্রিয় লেখক। প্রান্তিক মানুষের যাপন নিয়ে, অসহায় নিরালম্ব মানুষের আখ্যান নিপুণ কলমে ফুটিয়ে তোলা তাঁর বৈশিষ্ট্য। প্রান্তিক বাস্তবতার সম্ভাবনাময় পরিসর তাঁর প্রতি লেখায়। লেখা বলতে তাঁর গল্প উপন্যাসগুলোকে বোঝাতে চাইছি। নিজ দেশে থেকেও ভিনদেশি মানুষ, আর তার সামাজিক অস্তিত্বের সঙ্কট নিয়ে লেখা তাঁর উপন্যাসে ছিটমহলবাসী মানুষের অনিশ্চিত দৈনন্দিন যাপন তাঁর কলমে বৈশ্বিক আন্তর্জাতিক এই সঙ্কটের দিকে ঘুরিয়ে ফেলে পাঠকের মুখ।
‘‌এই পৃথিবীতে এমন কোনও দেশ আছে, যে দেশের কোনও দেশই নেই’‌.‌.. অমোঘ এই উচ্চারণে কেঁপে উঠেছিলাম একদিন, অমর মিত্রের উপন্যাসের হাত ধরে। ২০১৫–‌র জুলাই–‌আগস্টে ছিটমহল স্বাধীনতা পেল। তার আগে থেকেই অমর মিত্র ভারতের অন্তর্গত বাংলাদেশ–‌ছিটমহলকে আর বাংলাদেশের অন্তর্গত ভারত–‌ছিটমহলকে নিজের সাহিত্যভাবনার সঙ্গে জড়িয়ে নিয়েছেন। তাঁর এই অনুভবের কথা ছড়িয়ে পড়েছে অগণিত বাঙালি পাঠকের চেতনায়।
লেখক হিসেবে উত্তীর্ণ হলেন তিনি, পাঠককে তুলে নিলেন তাঁর বোধের জগতে। একে একে পড়েছি তাঁর নানা ‌গল্প–‌উপন্যাস। তাঁর লেখায় বাস্তবতা আর রোমান্টিকতার সমান্তরাল অবস্থান। বাস্তবের প্রান্তিক মানুষের সামাজিক জীবনের জটিলতা আর লেখকের কল্পনা মিলেমিশে একাকার। একটি শারদ–‌সংখ্যা প্রতি বছর সংগ্রহ করি শুধু তাঁর উপন্যাস পড়ব বলে।
গল্পকার ঔপন্যাসিক অমর মিত্রের সঙ্গে পরিচয় অনেক দিনের। এবার হাতে এল তাঁর ‘ভালো মানুষ মন্দ মানুষ’ নামে একটি সঙ্কলন। লেখক নিজে এই লেখাগুলোর নাম দিয়েছেন ‘বৃত্তান্ত’। শহর থেকে দূরে গঞ্জে গঞ্জে মানুষের সঙ্গে কাটানো তাঁর বিচিত্র অভিজ্ঞতার কথা। এক কথায় বলতে গেলে বলতে হয়, প্রবাহিত মনুষ্যত্বের কথা।
সাহিত্য আকাদেমি পুরস্কার পাওয়ার পর তাঁর একটি সাক্ষাৎকার পড়েছিলাম, পুরস্কৃত উপন্যাসের বিনির্মাণ নিয়ে। এক জায়গায় তিনি বলছেন,‘আমি আমার মতো লিখি। প্রবল বাস্তবতা থেকে বেরিয়ে যাই কখন, ধরতেই পারি না। এটাই আমার ফর্ম।’‌ সম্ভবত এই ফর্মের লেখাকেই জাদুবাস্তবতা বলা হয়।
‘ভালো মানুষ মন্দ মানুষ’ পড়তে পড়তে এই সাক্ষাৎকারটির কথা মনে পড়ে গেল। ৫২টি বৃত্তান্ত, বাহান্ন রকম মানুষের গল্প। পাঠককে বিষয়ের খুঁটিনাটি চিনিয়ে দিচ্ছেন হাত ধরে, কখনও তাকে চরিত্রদের পাশে বসিয়ে দিচ্ছেন, কখন যেন পাঠকের সঙ্গে তাদের সংলাপও শুরু করিয়ে দিচ্ছেন। এই লেখাগুলো যতটা তথ্য, ততটাই অনুভব। 
সেই অনুভবে ‘সলিলবাবু ও নদীজননী’ একাত্ম হয়ে পড়ে ‘মরিয়ম মাসির দিবস রজনী’ বৃত্তান্তে। ‘দিগলিপুরের তালুকদার মশাই’ আর ‘বুড়ো আমেরিকানের কথা’ একইভাবে রেশ রেখে যায় মনে। ‘ইছামতীর এপার ওপার’, ‘একটি মেয়ে একটি নদী’, কিংবা সাতক্ষীরের দীপ্তিময় মল্লিক’ কোথায় যেন বাঁধা পড়ে একসুরে। ‘কপোতাক্ষর অন্ধকার’ লিখতে গিয়ে লেখক উচ্চারণ করেন, ‘‌নদী বুঝি ফিরে গেছে নিজ অন্ধকারে, যেমন যায় মানুষ।’‌ বিষণ্ণ পাঠকমন অপেক্ষায় থাকি অন্ধকার শেষে ভোরের আলোর।
যাপনপথে এইভাবেই ভালোমানুষ আর মন্দমানুষ গায়ে গা ঠেকিয়ে থাকে, যেমন থাকে আলো আর অন্ধকার।
ছোট ছোট সরল নির্ভার প্রতিটি লেখা সুপাঠ্য। গভীর সামাজিক দৃষ্টি, মনস্তত্ত্বের জটিল বাঁক, আর অসামান্য সৌন্দর্যময় বাংলা ভাষা। সঙ্কলনের প্রতিটি বৃত্তান্তে সেই সুন্দর মাটির ভাষা, জলের ভাষা, নদীর বাঁকের ভাষা । যোগ্য ভাষায় এক সমাজমুখী আত্মসমর্পণের বৃত্তান্ত। ■

ভালো মানুষ মন্দ মানুষ • অমর মিত্র • দে’জ পাবলিশিং • ২৫০ টাকা‌

জনপ্রিয়

Back To Top