বিশ্বরূপ মুখোপাধ্যায়
সেই তিরিশ বছর (‌১৯৪৭–‌১৯৭৭)‌ •‌ দেবাশিস ভট্টাচার্য •‌ জে বি প্রকাশনী • ২৫০ টাকা
বইটির পাতা ওল্টানো শুরু করতেই গত শতকের উত্তাল ৬০–‌৭০ দশকের স্মৃতি উসকে দিল।
সেই ষাটের দশক.‌.‌.‌ ফ্রান্সে ১৯৬৮–তে ঐতিহাসিক ছাত্র আন্দোলন আর এদিকে পশ্চিমবঙ্গে ঐতিহাসিক নকশালবাড়ি কৃষক আন্দোলনের সলতে পাকানোর কাজ চলছে। এদেশে মানবাধিকার আন্দোলনের প্রথম সারির নেতা, বসন্তের বজ্রনির্ঘোষের স্বপ্ন দেখা অসংখ্য তরুণের একজন, পরবর্তী কালে সাংবাদিক দেবাশিস ভট্টাচার্যের সঙ্গে এই আলোচকের আলাপ বা পরিচয় গত শতকে আশির দশকের গোড়ায় কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বারভাঙা হলে। এই আলোচক তখন বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতা বিভাগের ছাত্র। দেবাশিস ভট্টাচার্য যেভাবে কথা বলেন, ঠিক সেভাবেই লেখেন। ফলে সহজেই পৌঁছে যান পাঠকের কাছাকাছি। সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে তাঁর লেখা বই ‘‌সেই তিরিশ বছর’‌। একটার পর একটা ঘটনা নিপুণভাবে সাজানো ২৩৮ পাতার বইটি স্বাধীনতা–‌পরবর্তী তিরিশ বছরের এই দেশ ও পশ্চিমবঙ্গের একটি অসামান্য দলিল। মনে রাখতে হবে, স্বাধীনতা–‌পরবর্তী আনন্দাশ্রু বেদনায় পর্যবসিত হয়েছিল যখন পশ্চিম পাকিস্তান ও পূর্ব পাকিস্তান (‌অধুনা বাংলাদেশ)‌ থেকে উদ্বাস্তু ও শরণার্থীর ঢল পাঞ্জাব ও পশ্চিমবঙ্গ, এই দুটি রাজ্যকে দিশাহারা করে দিয়েছিল। তৈরি হয়েছিল অভূতপূর্ব অর্থনৈতিক সঙ্কট। স্বাধীনতার পর থেকেই একটার পর একটা আন্দোলন। তেভাগা আন্দোলন, উদ্বাস্তুদের কলোনি পত্তন আন্দোলন, ট্রামভাড়া বৃদ্ধি আন্দোলন, শিক্ষক আন্দোলন, চাকরির দাবিতে মহিলাদের আন্দোলন। এ রাজ্যে ১৯৫৯ সালের ঐতিহাসিক খাদ্য আন্দোলনের জের কাটতে–না–কাটতেই ১৯৬৬–তে ১৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ৪ ও ৫ মার্চ খাদ্য ও কেরোসিনের দাবিতে আন্দোলনে গোটা বাংলা উত্তাল হয়েছিল। আন্দোলনের পুরোভাগে ছিল মূলত ছাত্ররা। বসিরহাটে নুরুল ইসলাম, কৃষ্ণনগরে আনন্দ হাইত, অর্জুন বিশ্বাস প্রমুখ ছাত্র পুলিসের গুলিতে নিহত হয়েছিল। প্রতিটি আন্দোলনই জনজীবনকে প্রবলভাবে নাড়া দিয়েছিল। তবে সবথেকে সাড়া ফেলেছিল ১৯৭৪ সালে ৮ মে থেকে ২৭ মে ২০ দিনের রেল ধর্মঘট। আন্দোলন শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হলেও ওই ২০ দিনে দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়েছিল। দেবাশিস ভট্টাচার্যের কথায়, স্বাধীনতা–‌পরবর্তী ভারতে সবথেকে বড় গণ–আন্দোলন।
আরেকটি উল্লেখযোগ্য বিষয়ের কথা লেখক লিখেছেন। ১৯৬৭ থেকে ১৯৭২— পাঁচ বছরে পশ্চিমবঙ্গে চারবার বিধানসভা ভোট হয়েছে। ১৯৬৮ থেকে ১৯৭২— চার বছরে চারবার রাষ্ট্রপতি শাসন হয়েছে। যা নজিরবিহীন। ১৯৭১–এ তদানীন্তন পূর্ব পাকিস্তানে (‌অধুনা বাংলাদেশ)‌ বঙ্গবন্ধু মুজিবর রহমানের নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয়। বাংলাদেশ স্বাধীন হয় ভারতের সক্রিয় সহযোগিতায়। এশিয়ার মুক্তিসূর্য হিসেবে বন্দিত হন ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী। দেবাশিস ভট্টাচার্য লিখেছেন, ঘটনাবহুল এই তিরিশ বছরে গণতন্ত্রের সবচেয়ে কালো দিন ছিল ১৯৭৫ সালের ২৬ জুন। সারা দেশে জরুরি অবস্থা জারি হয়। গ্রেপ্তার হন বিরোধী রাজনৈতিক দল ও ট্রেড ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ, গণতান্ত্রিক আন্দোলনের অসংখ্য কর্মী, রেহাই পাননি স্পষ্টকথা–বলা সাংবাদিকেরাও।
খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি কাজ করলেন দেবাশিস ভট্টাচার্য। অসম্ভব পরিশ্রম ও দক্ষতায় নিপুণ ও নির্ভুলভাবে একটার পর একটা ঘটনার কথা ছবি ও নথি–সহ লিপিবদ্ধ করেছেন। রাজনৈতিক ও সমসাময়িক ইতিহাস নিয়ে যাঁরা চর্চা করেন, এই বই তাঁদের সাহায্য তো করবেই, সাধারণ পাঠকও পড়বেন এক নিঃশ্বাসে। সংগ্রহে রাখবেন।‌‌ ■

জনপ্রিয়

Back To Top