উদ্দালক ভট্টাচার্য: স্মৃতি হরেক রকম। সেই স্মৃতির আদল একেক জনের কাছে, এক একরকম। কেউ কিছু মনে রাখতে চায়, কেউ মনে রাখতে চায় না। কিন্তু সবই থাকে মাথার মধ্যে। সব সময় সব কিছু মনে পড়ে না। কখনও আবার স্থান কাল পাত্রের বিচারে, সেসব কথা মনে ভিড় করে আসে। ঋক্‌সুন্দর বন্দ্যোপাধ্যায়ের লেখা ‘‌চলার পথের খড়কুটো’‌ তেমনই এক স্মৃতির সেভিংস অ্যাকাউন্ট। মনে পড়ে যাওয়ার কথা মনে করে করে লিখেছেন ঋক্‌। চলার পথে যে খড়কুটো তিনি কুড়িয়ে নিয়েছেন বারবার, তা ভাগ করে নিয়েছেন পাঠকদের সঙ্গে। একে ঠিক মুক্তগদ্যের বই বলা চলে না। কারণ, এতে তো গল্পও আছে। দশটি ভিন্নধর্মী রচনা নিয়ে ধানসিড়ি প্রকাশনার তরফে এই বইটি প্রকাশ করা হয়েছে। 
এক শহুরে, মফঃস্বল, উত্তর থেকে দক্ষিণ, নগর জীবনের পর্যায় ঋকের বইয়ে সাজানো আছে। ছোটবেলা কেমন ছিল?‌ হাওয়াই চটি, সাইকেল, বুক ক্রিকেট, পিকনিক, স্কুলে জীবনের এক আশ্চর্য মায়ার কথা লিখেছেন ঋক্‌। তারপরেই বড় হয়ে ওঠার এক অবশ্যম্ভাবী বাহন ট্রেন যাত্রা, টিকিট ও বিনা টিকিটের শিড়দাঁড়া শক্ত করে দেওয়া গল্প। এসেছে মায়াবী রাতের কথাও। শহরের সাদাকালোয় কত লোকের কাছে নিশিযাপন কতরকম, সেকথা কলমের আঁচড়ে বুঝিয়ে দিতে চেয়েছেন ঋক। আছে সিনেমার কথাও। সিনেমা পাড়ার হওয়া না হওয়া চিত্রনাট্যের নায়ক, খলনায়কেরা কীভাবে এখনও স্বপ্ন দেখে চলেন, কীভাবে রুপোলি রং তাঁদের চোখে চিকচিক করে ওঠে, সে কথাও গন্ধ ছড়িয়ে আলগোছে বসে থাকে ঋকের লেখায়। সব শেষে ঋক লিখেছেন এক একুশ শতকীয় কথপোকথন, ‘‌হাতেগোনা ক–বার দেখা হবে এ জীবনে।’‌ সময় পাল্টেছে হয়ত, মাধ্যমও বদলেছে, কিন্তু প্রেম কি পাল্টেছে?‌ সহজ জীবন ছেড়ে, নরনারীর সম্পর্ক যে জটিলতাকে ভালবেসেছিল প্রথম দিন থেকে, তা তো এখনও একইরকম। সংলাপ রচনা ঋকের বইকে দিয়েছে এক অন্যমাত্রা। 
আর একটা কথা, পেপারব্যাকে ধানসিড়ি যত্ন নিয়ে প্রকাশ করেছে বইটি। ভারি সুন্দর প্রচ্ছদ এঁকেছেন সেঁজুতি বন্দ্যোপাধ্যায়, অলঙ্করণ অনন্য ঠাকুরের, মনে হয় যেন গয়না পরেছে ঋকের ‘‌চলার পথের খড়কুটো’‌। ‌■
চলার পথের খড়কুটো • ঋক্‌সুন্দর বন্দ্যোপাধ্যায় ধানসিড়ি • ১৩০ টাকা‌

জনপ্রিয়

Back To Top