আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মা দুর্গা স্বামীর ঘর কৈলাসে ফিরে গেলেন। লক্ষ্মী এলেন। তিনিও এবার চললেন। এক এক করে দুই পুজোই শেষ। তবু উৎসবের আমেজ কিন্তু কাটেনি। কারণ এখন আমাদের নজরে দীপাবলি। দুর্গাপুজো, লক্ষ্মীপুজো বলা চলে শুধু বাঙালিদের উৎসব। কিন্তু দীপাবলি প্রায় গোটা ভারতেই পালিত হয়।
কেন পালন করা হয় এই দীপাবলি?‌ এই নিয়ে অনেক গল্পগাঁথা চালু রয়েছে। সবথেকে প্রচলিত ধারণা হল, এই সময়েই রাবণ বধ করে অযোধ্যায় ফিরেছিলেন শ্রীরামচন্দ্র, সীতা, লক্ষ্মণ। তাঁদের স্বাগত জানাতেই গোটা অযোধ্যা নগরী সেই রাতে দীপ জ্বালিয়ে বসেছিল। সেই থেকে জন্ম এই দীপাবলি উৎসবের। 
মহাভারতে কথিত রয়েছে, যে ভূদেবী ও বরাহর পুত্র নরকাসুর খুব শক্তিশালী ছিলেন। স্বর্গ ও মর্ত্য দখল করে প্রবল অত্যাচার শুরু করেন। শ্রীকৃষ্ণ নরকাসুরকে বধ করে তাঁর প্রাসাদে বন্দিনী ১৬,০০০ নারীকে উদ্ধার করেন। এদের সবাইকেই বিয়ে করে নেন কৃষ্ণ। কিন্তু মৃত্যুর আগে নরকাসুর কৃষ্ণের কাছে বর চেয়ে নেন, যে তাঁর মৃত্যুর দিনটি যেন ধূমধাম করে পালিত হয়। এই দীপাবলিতেই নাকি নরকাসুরকে বধ করেছিলেন কৃষ্ণ।
জৈনধর্ম অনুযায়ী, দীপাবলিতেই নির্বাণ লাভ করেছিলেন মহাবীর। এছাড়াও মহাভারতে কথিত, যে ১২ বছর বনবাস ও এক বছর অজ্ঞাতবাসের পর দীপাবলিতেই হস্তিনাপুরে ফিরে এসেছিলেন পাণ্ডবরা। সেই জন্য আলোর মালায় সাজানো হয়েছিল গোটা হস্তিনাপুর।
 

জনপ্রিয়
আজকাল ব্লগ

Back To Top