আজকাল ওয়েবডেস্ক: কোনওমতে কাজিকে রাজি করিয়ে মসজিদে গিয়ে টুক করে বিয়েটাই শুধু সেরেছিলেন প্রবাসী আহমদী মুসলিম বংশোদ্ভূত দুই মার্কিন চিকিৎসক। মধুচন্দ্রিমার সব কিছু ঠিক করা থাকলেও কর্তব্যের খাতিরে তা শিকেয় তুলে তৎক্ষণাৎ কাজে যোগ দিলেন নবদম্পতি।
৩৭ বছরের কাশিফ চৌধুরি পেশায় কার্ডিয়্যাক ইলেক্ট্রোফিজিওলজিস্ট। তিনি আমেরিকার আইওয়া স্টেটের সেডার র‌্যাপিডস্‌ শহরের মার্সি হাসপাতালে কাজ করেন। আর তাঁর সদ্য পরিণীতা স্ত্রী নায়লা শিরিন নিউ ইয়র্কের হাসপাতালগুলোর ইন্টারনাল মেডিসিন চিফ রেসিডেন্ট। মার্চের শেষে তাঁদের বিয়ের দিন স্থির ছিল। তারপর মধুচন্দ্রিমা। কিন্তু করোনাভাইরাস মহামারী আমেরিকায় থাবা বসানোর পর সব পরিকল্পনাই ভেস্তে যায়। শেষমেষ, গত দুসপ্তাহ আগে নিউ জার্সির হথর্নের এক মসজিদের ইমামকে অনেক কষ্টে রাজি করিয়ে শুধু বিয়েটা সারেন কাশিফ আর শিরিন। তারপর নিউ ইয়র্কের নিউ উইন্ডসরে শিরিনের বাপেরবাড়িতে ছোট্ট পারিবারিক অনুষ্ঠান সারেন। বিয়ের ১২ ঘণ্টা পরই নতুন বরকে বিমানবন্দরে পৌঁছে দিয়ে যান শিরিন নিজেই। নবপরিণীতা স্ত্রীকে ছেড়ে সোজা আইওয়ায় নিজের হাসপাতালে এসে কাজে যোগ দেন কাশিফ। আর শিরিনও ফিরে যান নিজের কাজের জগতে।
আপাতত সোশ্যাল মিডিয়াতেই কথাবার্তা চলছে নবদম্পতির। যেহেতু নিউ ইয়র্কে সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি, তাই শিরিনকে নিয়ে কিছুটা দুশ্চিন্তা থাকলেও স্ত্রীর কাজ এবং দায়িত্বজ্ঞান নিয়ে তিনি অত্যন্ত গর্বিত, ভিডিও কনফারেন্সিং–এ রোগীদের সঙ্গে কথা বলতে বলতে জানালেন কাশিফ। শিরিনও কাশিফের কর্তব্যবোধ নিয়ে সমান গর্বিত। দুজনেই জানালেন মধুচন্দ্রিমায় যেতে না পারলেও নিজেদের দায়িত্বের প্রতি পারস্পরিক শ্রদ্ধাই তাঁদের বন্ধন আরও দৃঢ় করেছে।   

জনপ্রিয়

Back To Top