আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ছেলে মারা গিয়েছিলেন কোথায়, কখন, কীভাবে জানতেও পারেননি। জানেন না কে, তাঁর ছেলের মৃতদেহের সৎকার করেছিলেন। ছেলের মৃত্যুর একমাস পর তাঁর মৃত্যুর খবর পেয়েছিলেন। তারপর থেকেই কোনও অজ্ঞাতপরিচয় মৃতদেহের সন্ধান পেলেই তাঁর সৎকারের ভার নিজের কাঁধে তুলে নেন অযোধ্যার বাসিন্দা মহম্মদ শরিফ। বৃদ্ধ জানালেন, ২৭ বছর আগে তাঁর ছেলে সুলতানপুরে খুন হয়েছিলেন। ঘটনার একমাস পর ছেলের মৃত্যুর খবর পান তাঁরা। তারপরই তিনি মনস্থির করেন কোনও অজ্ঞাতপরিচয় মৃতদেহের সন্ধান পেলেই পূর্ণ মর্যাদায় সৎকার করবেন। সেই মতোই এতোদিন ধরে কাজ করে চলেছেন বৃদ্ধ। জানালেন, এপর্যন্ত মোট ৩০০০টি হিন্দু ধর্মাবলম্বীর মৃতদেহ এবং মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের ২৫০০টি মৃতদেহের সৎকার সম্পন্ন করেছেন। তাঁকেই এবার অযোধ্যা থেকে পদ্মশ্রী পুরস্কারের জন্য বেছে নিয়েছে কেন্দ্র। তবে পুরস্কার পেয়েই তিনি তাঁর কাজে বিরতি দেবেন না। যতদিন পারবেন এই কাজই করে যাবেন। জানালেন সন্তানহারা বৃদ্ধ পিতা।
ছবি:‌ এএনআই 

জনপ্রিয়

Back To Top