আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ সিনেমাজগৎ থেকে রাজনীতির আঙিনা সবসময়ই চর্চিত তিনি। ২০১৪ সালেও তাঁকে নিয়ে কম চর্চা হয়নি রাজনীতির অলিন্দে। এবারও তিনিই আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে। হ্যাঁ, তিনি মুনমুন সেন। ২০১৪ সালে বাঁকুড়া লোকসভা আসন থেকে সিপিএমের দীর্ঘদিনের দুঁদে সাংসদ বাসুদেব আচারিয়াকে পরাজিত করেন মুনমুন সেন। এবার তাঁকে বাঁকুড়া থেকে সরিয়ে আসানসোলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এই কেন্দ্রের সাংসদ বিজেপি’‌র কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। আর বিজেপি’‌র এই সাংসদকে পরাজিত করতে সেই মুনমুনের ওপরই ভরসা রেখেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জি। 
জানা গিয়েছে, প্রার্থী হিসেবে যখন তাঁর নাম ঘোষণা হচ্ছে তখন তিনি মুম্বইতে নিজের মেয়ে রাইমা সেনের সঙ্গে  সময় কাটাচ্ছেন।

পারিবারিক সূত্রে পাওয়া খবর, নতুন আসনে লড়তে হবে জেনে মুনমুন সেন খুশি। খানিকটা আত্মবিশ্বাসীও বটে। উন্নয়নের কাজ ভালই করেছেন তিনি। এবারও জিতে আরও ভাল কাজ করবেন বলে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ তিনি। তবে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্তে বেশ ভয় পেয়েছেন বাবুল। তাই মুনমুনের প্রার্থী হওয়ার কথা জানতে পেরে টুইট করেছেন বাবুল। তিনি লিখেছেন, ‘‌মমতাজি আমার বিরুদ্ধে চিরকাল সেনসেশানাল প্রার্থী দাঁড় করান। ২০১৪ সালে দোলা সেন আর এবার মুনমুন সেন।’‌ উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে প্রায় ৬০ হাজার ভোটের ব্যবধানে জিতেছিলেন বাবুল।   
মুনমুনকে রাজনীতিতে নিয়ে আসাটাও আকস্মিক। ২০১৪ সালের জানুয়ারি মাসে প্রয়াত হন তাঁর মা সুচিত্রা সেন। তারপরই প্রার্থী হন মুনমুন। বাঁকুড়া থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বাসুদেব আচারিয়াকে পরাজিত করেন মুনমুন। আর এবার দেখার কি হয়। 

জনপ্রিয়

Back To Top