আজকাল ওয়েবডেস্ক: প্রাক্তন সমতা পার্টির সভানেত্রী জয়া জেটলির প্রতিরক্ষা চুক্তি দুর্নীতি মামলায় চার বছরের কারাদণ্ড হল।  বৃহস্পতিবার দিল্লির একটি বিশেষ আদালত ২০০০–০১ সালের ওই মামলায় এই রায় দেয়। বিশেষ সিবিআই বিচারক বীরেন্দর ভাট জয়ার প্রাক্তন দলীয় সহকর্মী গোপাল পাচেরওয়াল এবং অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল এসপি মুরুগাই–কেও চার বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন। আদালতের বাইরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে একথা জানান মুরুগাই–এর আইনজীবী বিক্রম পানোয়ার। তিনজনকে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২০–বি ধারা এবং দুর্নীতি দমন আইনের ৯ নম্বর ধারায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়।
করোনা আবহে ইন–ক্যামেরা শুনানি হয়েছিল। প্রত্যেককে এক লক্ষ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে এবং এদিন বিকেল পাঁচটার মধ্যে তিনজনকেই আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেয় আদালত। আদালত রায়ে উল্লেখ করেছে জয়া ভুয়ো কোম্পানি ওয়েস্টএন্ড ইন্টারন্যাশনালের কাছ থেকে দুলক্ষ টাকা, পাচেরওয়াল এক লক্ষ টাকা এবং মুরুগাই ২০,০০০ নিয়েছিলেন। কোম্পানির ভুয়ো প্রতিনিধি স্যামুয়েল তৎকালীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জর্জ ফার্নানডেজের সরকারি বাসভবনেই ওই চুক্তি করেছিল।
বিচারক ভাট রায় পড়ে শোনানোর সময় বলেন, ‘‌এটা প্রমাণিত দোষীরা অজ্ঞতাবশত বা কোনও চাপে পড়ে ওই অপরাধ করেননি। উল্টে তাঁরা অপরাধ করেছিলেন পুরো ছক কষে, এবং নিজেদের ইচ্ছায়। নিঃসন্দেহে তাঁদের ওই অপরাধ খুব গভীর এবং আমাদের দেশের প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে তার চরম খারাপ প্রভাব পড়েছিল। তাঁরা সন্দেহজনক কোম্পানির প্রতিনিধিদের কাছ থেকে টাকা নেন, এটা না খোঁজ নিয়েই যে আদৌ ওই কোম্পানির অস্তিত্ব আছে কিনা বা আমাদের সেনাবাহিনীতে তাদের পণ্য প্রয়োজন কিনা। এই কাজ করে তাঁরা সম্পূর্ণ প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রের সঙ্গে সমঝোতা করেছিলেন। এটা দেশের স্বাধীনতার উপর হামলার থেকে কোনও অংশে কম নয়। এই আদালতের মতে, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে কোনও দুর্নীতি বরদাস্ত করা উচিত নয়, কারণ এর সরাসরি প্রভাব পড়ে দেশের স্বাধীনতা এবং সার্বভৌমত্বে।’‌
এরপর বিচারক দেশের সর্বত্র, বিশেষ করে সরকারি অফিসগুলিতে দুর্নীতির কুপ্রভাব নিয়ে কঠোর সমালোচনা করেন। তিনজনকেই হাতে ধরা থার্মাল ইমেজার কেনার নামে আর্থিক দুর্নীতিতে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। ২০০১ সালে ‘‌তেহলকা.‌কম’‌ নামে একটি নিউজ পোর্টালে ‘‌অপারেশন ওয়েস্টএন্ড’‌ নামে এই মামলার স্টিং অপারেশন দেখানো হয়েছিল। যা সেসময় নাড়িয়ে দিয়েছিল দেশের গতানুগতিক সাংবাদিকতার ভিত। শুধু ওই স্টিং অপারেশনের ধাক্কাতেই পড়ে গিয়েছিল তৎকালীন এনডিএ সরকার। ওই মামলায় প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জর্জ ফার্নানডেজও অভিযুক্ত ছিলেন। কিন্তু তিনি মারা যাওয়ায় তিনজনের শাস্তি হল।       ‌‌‌‌‌‌      ‌‌‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top