আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ভারতীয় অর্থনীতি এমনিতেই এখন নেটিজেনদের মূল চর্চার বিষয়। তার মাঝে স্থানীয় স্তরে উঠে এসেছে বাংলাদেশের তুলনায় ভারতীয় টাকার মূল্যের কথা। গত ৩৬ বছরের মধ্যে প্রথমবার ভারতীয় টাকাকে ধরে ফেলার বাংলাদেশি টাকা। ২৭ আগস্ট ১০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছিল ৮৬ রুপি। ২৮ তারিখ অবস্থার সামান্য উন্নতি হয়ে ১০০ বাংলাদেশি টাকায় পাওয়া যাচ্ছে ৮৫ ভারতীয় রুপি। যা সাম্প্রতিক ইতিহাসে সর্বোচ্চ। স্বাভাবিকভাবে, পশ্চিমবঙ্গের কলকাতাসহ ভারতের বড় বড় শহরের শপিং মলে বাংলাদেশিদের কেনাকাটাও বেড়েছে। বাংলাদেশি সংবাদমাধ্যম ইত্তেফাক দাবি করেছে, এই সময়ে  ভারতে পাচার হয়ে যাচ্ছে কোটি কোটি টাকা। বেড়েছে চোরাচালানও। আগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে ভারতে রুপির মান নিম্নমুখী হতে শুরু করে।

ফলে রুপির বিপরীতে টাকার মূল্যমান বাড়তে থাকে। ডলারের দাম বৃদ্ধি ও সংকট, জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধিসহ ভারতের অভ্যন্তরীণ বাজারে রুপির এই দরপতনে টাকার মর্যাদা বেড়েছে। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতার পর বাংলাদেশি মুদ্রা ১০০ টাকায় সমান সমান ভারতীয় ১০০ রুপি পাওয়া যেত। এরপর টাকার মান কমতে থাকে। একপর্যায়ে তা রুপির চেয়ে অর্ধেকেরও কমে এসে দাঁড়ায়। কিন্তু তারপর থেকেই ভারতীয় অর্থনীতির অবনমনের ফলেই আজ এই দিন দেখতে হচ্ছে বলে অনেকে মনে করছেন। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক থেকে প্রচুর পরিমাণ টাকা কেন্দ্রীয় সরকার নিজের কোষাগারে নিয়েছে। এখন প্রশ্ন, ড্যামেজ কন্ট্রোলের এই অভূতপূর্ব সিদ্ধান্তের ফলে ভারতীয় অর্থনীতি আদৌ চাঙ্গা হবে, নাকি আরও সংকটের মুখে পড়বে দেশ। 
 

জনপ্রিয়

Back To Top