আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ সেই ১৯৫০ সাল। তখন থেকে সাধারণ তন্ত্রের দিন কুচকাওয়াজের রেওয়াজ রয়েছে ভারতে। প্রতি বছর সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকে কোনও বিদেশি রাষ্ট্রনেতা। ব্যতিক্রম হয়েছিল ১৯৬৬ সালে। তার পর ফের এবার, ২০২১ সালে। কারণ করোনা।
১৯৬৬ সালের ১১ জানুয়ারি তাশখন্দে রহস্যমৃত্যু হয় প্রধানমন্ত্রী লালবাহাদুর শাস্ত্রীর। ইন্দিরা গান্ধীর নেতৃত্বাধীন সরকার শপথ নেয় ২৪ জানুয়ারি। সাধারণতন্ত্র দিবসের দু’‌দিন আগে। জানা গেছে, সে কারণে কাউকে সে বছর আমন্ত্রণ জানানো যায়নি।
কথা ছিল, এ বছর ২৬ জানুয়ারির অনুষ্ঠানে থাকবেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। কিন্তু ব্রিটেনে করোনার নতুন স্ট্রেনের দাপাদাপিতে বাতিল হল সফর। হাতে আর মাত্র ২০ দিন। এর মধ্যে অন্য রাষ্ট্রের প্রধানকে আমন্ত্রণ জানানো এবং তাঁর সম্মতি আদায়ের আশা দেখছেন না বিশেষজ্ঞরা। তাই মনে করা হচ্ছে প্রায় ৫৫ বছর এবার কুচকাওয়াজে থাকছেন না কোনও বিদেশি অতিথি। বিদেশি অতিথিদের উপস্থিত থাকার এই রেওয়াজ নিয়ে কিছু তথ্য—
• ১৯৫০–৫৪ অনুষ্ঠানের নির্দিষ্ট স্থান ছিল না। মেজর ধ্যানচাঁদ ন্যাশনাল স্টেডিয়াম, রাজপথ, রেড ফোর্ট, রামলীলা ময়দানে হয়েছে
• ১৯৫৫ সাল থেকে রাজপথে শুরু কুচকাওয়াজ
• ১৯৫০ থেকে ৭০ অতিথি হয়েছে মূলত পূর্বের দেশের প্রতিনিধিরা
• ১৯৬৮–১৯৭৪ প্রতি ২৬ জানুয়ারি দু’‌টি দেশের রাষ্ট্রপ্রধান বা প্রতিনিধিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়
• প্রথম বছর, ১৯৫০ সালে অতিথি হয়ে এসেছিলেন ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট সুকার্নো
• ১৯৫২ এবং ১৯৫৩ সালে কাউকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি
• ১৯৫৫ সালে প্রথম কুচকাওয়াজের বছরে আমন্ত্রিত ছিলেন পাকিস্তানের গভর্নর জেনারেল মালিক গুলাম মহম্মদ
• ১৯৬১ সালে অতিথি ছিলেন ব্রিটেনের রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ
• সবথেকে বেশি আমন্ত্রিত হয়ে এসেছেন ব্রিটেন এবং ফ্রান্সের প্রতিনিধিরা, পাঁচ বার
• চার বার আমন্ত্রিত হয়েছে ভুটান ও সোভিয়েত রাশিয়া
• ২০১৮ সালে আমন্ত্রিত হন পাঁচ দেশের প্রতিনিধি
 

জনপ্রিয়
আজকাল ব্লগ

Back To Top