আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এখন পর্যন্ত দেশে করোনায় মারা গেছেন ৮০ হাজার ৭৭৬ জন। তার মধ্যে ৪২ শতাংশই মাত্র ১১টি জেলার বাসিন্দা। এই জেলাগুলোর এক–একটিতে হাজারেরও বেশি করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে।
এই ১১টি জেলার মধ্যে অবশ্যই দেশের বড় শহরগুলো রয়েছে। যেমন মুম্বই, দিল্লি, চেন্নাই, পুনে, বেঙ্গালুরু। তবে দেশের কয়েকটি ছোট শহরও কিন্তু এই তালিকায় রয়েছে। মহারাষ্ট্রের নাগপুর, নাসিক, জলগাঁও। সেখানেও মৃত্যুর সংখ্যা ১০০০ ছাড়িয়েছে।
তবে এই শহরগুলোয় মৃত্যু যে বেশি, তা অপ্রত্যাশিত নয়। কারণ এখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যাও অনেক বেশি। ভারতে করোনা সংক্রমণের নিরিখে যে শহরগুলো প্রথম দশে স্থান পেয়েছে, তাদের মধ্যে রয়েছে নাসিক, নাগপুর। আর জলগাঁও করোনা সংক্রমণের নিরিখে প্রথম ২৫টি শহরের মধ্যে পড়ে। 
মহারাষ্ট্রের আরও তিনটি জেলায় এখন করোনা সংক্রমণ এবং মৃত্যু লাগামছাড়াভাবে বাড়ছে। সেগুলো হল রায়গড়, সোলাপুর, কোলাপুর। এই তিন জেলাতেও মৃত্যু এক হাজার ছাড়িয়েছে। এখন পর্যন্ত করোনায় যত জন মারা গেছেন, তাঁদের ৪০ শতাংশই মহারাষ্ট্রের বাসিন্দা। মহারাষ্ট্রের মৃত্যুর হার (‌কেস ফ্যাটালিটি রেশিও)‌ যথেষ্ট বেশি। ২.‌৮২ শতাংশ। দেশে মোট করোনা সংক্রামিতের মধ্যে কত জন মারা গেছেন, সেই হারকে বলে কেস ফ্যাটালিটি রেশিও। 
গত সপ্তাহে দেশে প্রায় প্রতিদিনই ৯০ হাজার মানুষ নতুন করে সংক্রামিত হয়েছেন। তবে এদিন সেই সংক্রমণের হার কিছুটা কমেছে। 
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুসারে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৮৩ হাজার ৮০৯ জন নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন। দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৪৯ লক্ষ ৩০ হাজার ২৩৬ জন। দুনিয়ায় আক্রান্তের নিরিখে ভারত দ্বিতীয়। প্রথম স্থানে থাকা আমেরিকায় মোট আক্রান্ত ৬৫ লক্ষ ৫৩ হাজার। 

জনপ্রিয়

Back To Top