সংবাদ সংস্থা,আমেদাবাদ: মানহানির মামলা ঠুকে ১০০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করবেন, কিন্তু আবেদনের দিন জয় শাহ–র উকিলই হাজির হতে পারলেন না আদালতে। পাঠিয়ে দিলেন নিজের জুনিয়রকে। তিনি নতুন করে তারিখ চেয়ে নিলেন আদালতের কাছে। তবে এই মামলার সারবত্তা যাচাইয়ের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। এদিকে অমিত–পুত্রের বিরুদ্ধে ওঠা অবৈধ প্রভাব খাটিয়ে ব্যবসায়িক সুবিধে নেওয়ার অভিযোগ সম্পর্কে সতর্ক প্রতিক্রিয়া দিল রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ। এদিন ভোপালে আরএসএসের এক বৈঠকের অবসরে সঙ্ঘের অন্যতম সাধারণ সম্পাদক দত্তাত্রেয় হোসাবলে বলেন, ‘‌যে কারও বিরুদ্ধেই দুর্নীতির অভিযোগ তোলা যায়। কিন্তু সেই অভিযোগ প্রমাণ করতে হবে।’‌ জয় শাহ সত্যিই এই দুর্নীতিতে জড়িত কি না, সে সম্পর্কে একই কথা বলেন হোসাবলে, ‘‌সেটা যারা অভিযোগ করেছে, তাদের প্রমাণ করতে হবে।’‌
বুধবার আমেদাবাদের মেট্রোপলিটন আদালতে জয় শাহের হয়ে মানহানির মামলা দায়েরের কথা ছিল বর্ষীয়ান আইনজীবী এসভি রাজু–র। কিন্তু তঁার বদলে এদিন তঁার জুনিয়র এক আইনজীবী এসে জানান, গুজরাট হাইকোর্টে অন্য একটি মামলার কাজে রাজু ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। তাই অন্য একটি দিন তঁাদের দেওয়া হোক। সেই অনুযায়ী ১৬ অক্টোবর পরের শুনানির দিন ঠিক করে দেয় আদালত। সংবাদ–পোর্টাল ‘‌দ্য ওয়্যার’‌–এর বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকার মানহানির মামলা ঠুকতে চলেছেন বিজেপি–র সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহর ছেলে জয়। গত ৩ বছরে জয়ের সংস্থা ‘‌টেম্পল এন্টারপ্রাইজ’‌–এর আয় ১৬ হাজার গুণ বাড়ার খবর ফাঁস করেছে তারা। অমিত–পুত্রের ফুলেফেঁপে ওঠার পেছনে প্রধানমন্ত্রীর কৃপাদৃষ্টির ইঙ্গিত দিয়েছে। তারই প্রেক্ষিতে ৯ অক্টোবর তাদের বিরুদ্ধে মামলা করার কথা বলেন জয়। আদালতে জমা পড়া আবেদনে ‘‌তাঁর ভাবমূর্তি কলঙ্কিত করায়’‌ ‘‌ওয়্যার’‌–‌‌এর ‘‌সারবত্তাহীন’‌, ‘‌বিভ্রান্তিকর’‌,‘‌অপমানজনক’‌ সংবাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ চেয়েছেন জয়। পোর্টালের ৭ জনের বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগ তঁার। তাঁরা হলেন ওই সংবাদের প্রতিবেদক রোহিণী সিং, তিন প্রতিষ্ঠাতা সিদ্ধার্থ বরদারাজন, সিদ্ধার্থ ভাটিয়া, এমকে ভেনুর, দুই সম্পাদক মনোবীণা গুপ্ত, পামেলা ফিলিপোজ এবং প্রকাশক সংস্থা ‘‌ফাউন্ডেশন ফর ইন্ডিপেন্ডেন্ট জার্নালিজম’‌। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৫০০, ১০৯, ৩৯ এবং ১২০বি ধারায় যথাক্রমে মানহানি, প্ররোচনা, ইচ্ছাকৃতভাবে আঘাত করা এবং ফৌজদারি ষড়যন্ত্রের মামলা দায়ের হবে তঁাদের নামে। জয়ের অভিযোগ, ‘‌দ্য ওয়্যার’‌-‌এ প্রথমে প্রকাশিত সংবাদ ছিল অন্যরকম। পরে সেটি সংশোধন এবং সংযোজন করা হয়েছে। সেটি ইচ্ছাকৃত বলে মনে করছেন তিনি। আবেদনে জানিয়েছেন, অভিযুক্তরা ষড়যন্ত্র করে ওই কাজ করেছেন। সবটাই পরিকল্পিত। তাঁর প্রতিক্রিয়াও নেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন জয়। তাঁর সংযোজন, ২০১৫–‌‌‌২০১৬–‌‌র আর্থিক বর্ষে তাঁর সংস্থার বিরাট ক্ষতি হয়েছিল। সেই খবর প্রতিবেদনের কোথাও নেই। কিন্তু লাভের বিষয়টি ফলাও করে লেখা হয়েছে। এদিকে, মোদির আমলে বিজেপি সভাপতির ছেলের সংস্থার বাড়বাড়ন্ত নিয়ে সিবিআই তদন্তের দাবি করেছে কংগ্রেস। ব্যবসার কাজে ১৫ কোটি ঋণ পেয়েছেন জয় শাহ বলে অভিযোগ। সেই বিষয়টিতে জোর দিয়ে দলের মুখপাত্র প্রিয়াঙ্কা চতুর্বেদীর প্রতিক্রিয়া, ‘‌কোন আইনে ১৫ কোটি টাকা ঋণ পাওয়া যায়?‌ প্রধানমন্ত্রী জানাবেন কি?‌’‌‌ তাঁর অভিযোগ, বিরোধী কণ্ঠস্বর–রোধে সিবিআই, ইডি, আয়করের মতো কেন্দ্রীয় সংস্থাকে লেলিয়ে দেয় সরকার। অথচ নিজের লোকদের ক্ষেত্রে ঠুঁটো করে দেন!‌ ‌‌

জয় শাহ

বুধবার ৪ অক্টোবর, ২০১৭

রাত পোহালেই কোজাগরি লক্ষীপুজো

মঙ্গলবার ৩ অক্টোবর, ২০১৭

সিঁদুর খেলায় তারকা সমাবেশ

মঙ্গলবার ৩ অক্টোবর, ২০১৭

কলকাতা পুজো কার্নিভাল

বৃহস্পতিবার ২৪ আগষ্ট, ২০১৭

গণেশ বন্দনায় মেতেছে বলিউড

বুধবার ২৩ আগষ্ট, ২০১৭

ফুলে ঢাকা চিলির মরুভূমি

রবিবার ৬ আগষ্ট, ২০১৭

পুতিনের মেমেতে ছয়লাপ রাশিয়া

শনিবার ৮ জুলাই, ২০১৭

বঙ্গ সংস্কৃতি, আমেরিকা

শনিবার ১ জুলাই, ২০১৭

বঙ্গ সংস্কৃতি অস্ট্রেলিয়া

শনিবার ১৪ অক্টোবর, ২০১৭

শহীদ অমিতাভকে শেষ শ্রদ্ধা

সোমবার ৩১ জুলাই, ২০১৭

সারমেয় সজ্জা

Back To Top