রাজীব চক্রবর্তী,দিল্লি: দুর্নীতির বিরুদ্ধে তদন্তে সিবিআই ও ইডি–‌‌সহ অন্য কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলি কি শুধুই বিরোধীদের জন্য? শাসক দলের ভূরি ভূরি দুর্নীতির তদন্ত কতদূর?‌ প্রশ্ন তৃণমূলের। কেন তারা এ কথা বলছে, তা বোঝাতে বিজেপি–‌‌র নেতা–‌‌‌মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে জমে থাকা কেলেঙ্কারিগুলির ‘‌এ টু জেড’‌ তালিকা প্রকাশ করেছে দল। তাদের দেওয়া দুর্নীতিগ্রস্তদের তালিকায় রয়েছেন নীতিন গাডকারি, সু্ষমা স্বরাজ, লালকৃষ্ণ আদবানি, মুরলীমনোহর যোশিরা। তালিকাটি তুলে দেওয়া হয়েছে দলের সাংসদদের হাতে। লক্ষ্য, সংসদের দুই কক্ষে শাসক দল এবং সরকারকে আক্রমণ করা।
দলের রাজ্যসভার নেতা তথা জাতীয় মুখপাত্র ডেরেক ও’‌ব্রায়েন এদিন এই সম্পর্কে জানিয়েছেন, ‘‌বিজেপি-‌র অপর নাম দুর্নীতি। পা থেকে মাথা পর্যন্ত ডুবে রয়েছেন ওঁরা। গত কয়েক দশক ধরে ভূরি ভূরি দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। সে সবের তদন্ত কবে হবে?‌ ক্ষমতায় এসেই ‘‌বিরোধী-‌শূন্য দেশ’ গড়তে উঠেপড়ে লেগেছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আসলে দেশ জুড়ে ‘‌সুপার ইমার্জেন্সি’‌ চালু করেছে মোদি সরকার।’‌ তাঁর দাবি, এর পেছনে রয়েছে বিভিন্ন রাজ্যে বিরোধী দলের নির্বাচিত সরকার ফেলে দেওয়া। এবং যে কোনও উপায়ে ক্ষমতা দখল করা। এই প্রসঙ্গে গোয়া, মণিপুর, বিহার এবং উত্তরাখণ্ডের ঘটনার উল্লেখ করেছেন তিনি।
দলীয় সাংসদদের যে তালিকাটি দেওয়া হয়েছে তাতে ‘‌এ’‌ থেকে ‘‌জেড’‌ পর্যন্ত অক্ষরের উল্লেখ করে বিজেপি–‌‌র বিভিন্ন দুর্নীতির কথা বলা হয়েছে। যেমন এ–‌‌তে ২০১০ সালে বেনামি সম্পত্তি দুর্নীতি ‘‌আদর্শ দুর্নীতি’‌‌, গুজরাটে আদানি গ্রুপের জমি কেলেঙ্কারি। বি-‌তে ২০০১ সালের বালকো, ২০১২ সালের বেলারি মাইনিং ও রেড্ডি ব্রাদার্স মাফিয়া দুর্নীতি, ২০১৩ সালের বেলেকেরি লৌহচূর্ণ দুর্নীতি। সি–‌‌তে ২০০২ সালের সেন্টুর হোটেল, ২০০৫ সালের টাকার বিনিময়ে প্রশ্ন তোলা, এবং এবছর উত্তরবঙ্গে শিশু–পাচার। ডি–‌‌তে ২০০৫ সালের ডেভেলপমেন্ট ফান্ড দুর্নীতি (‌সাংসদ তহবিল)‌, ই–‌‌তে একলব্য বিদ্যালয় দুর্নীতি, এফ–‌‌এ ২০১১ সালের ফেক পাইলট‌ দুর্নীতি, জি–‌‌তে ২০১১ সালের গুজরাট কো–‌‌অপারেটিভ ব্যাঙ্ক দুর্নীতি। এছাড়াও উল্লেখ আছে ২০০৭ সালের হাডকো মামলা, ২০০১ সালের লখনউয়ের আইটি পার্ক, ১৯৯৬ সালের জৈন হাওয়ালা কেলেঙ্কারি‌, কার্গিল কফিন দুর্নীতি, কুশাভাউ ঠাকরে ট্রাস্ট, ললিতগেট, নন পারফর্মিং অ্যাসেটস, অপারেশন ওয়েস্ট–‌‌এন্ড, পানামা পেপার্স, ব্যাপম কেলেঙ্কারি–‌সহ আরও কিছু মামলা বা অভিযোগের। ইংরেজি যে অক্ষরগুলির উল্লেখ নেই, সেই আর, এস, টি, ডব্লু, এক্স, ওয়াই ও জেড সংক্রান্ত দুর্নীতিগুলি শিগগিরই প্রকাশ করা হবে বলে সাংসদদের জানিয়েছে তৃণমূল।‌‌

মমতার পাঠানো উত্তরীয় দিয়ে গোপালকৃষ্ণ গান্ধীকে বরণ করছেন সুদীপ ব্যানার্জি। সংসদে, বুধবার। ছবি: রাজীব চক্রবর্তী

জনপ্রিয়

মুকুলকে নিতে আগ্রহী বিজেপি

বৃহস্পতিবার ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

অসীম ঘটকের শেষকৃত্য সম্পন্ন

বুধবার ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

থিম ‘‌কন্যাশ্রী’‌ বাঁধল গঙ্গা, টেমসকে  

বুধবার ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

বৃহস্পতিবার ২৪ আগষ্ট, ২০১৭

গণেশ বন্দনায় মেতেছে বলিউড

বুধবার ২৩ আগষ্ট, ২০১৭

ফুলে ঢাকা চিলির মরুভূমি

রবিবার ৬ আগষ্ট, ২০১৭

পুতিনের মেমেতে ছয়লাপ রাশিয়া

শনিবার ৮ জুলাই, ২০১৭

বঙ্গ সংস্কৃতি, আমেরিকা

শনিবার ১ জুলাই, ২০১৭

বঙ্গ সংস্কৃতি অস্ট্রেলিয়া

Back To Top