আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ এবং তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে আদালতে পেশ করা জিটের তদন্ত রিপোর্টে ফাঁক রয়েছে। ফলে ওই রিপোর্ট বাধ্যতামূলক নয়। সোমবার পাক সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ইজাজ আফজল খানের নেতৃত্বে বিচারপতি শেখ আজমত সৈয়দ এবং বিচারপতি ইজাজুল হাসানের বেঞ্চ একথা বলে। জিটকে পাক শীর্ষ আদালতের প্রশ্ন, বিদেশি কোম্পানি এফজেডই থেকে মাসিক বেতন তুলতেন কিনা শরিফ। ন্যাশনাল অ্যাকান্টেবিলিটি ব্যুরোর আইন মেনে সংযুক্ত আরব আমিরশাহি থেকে মিউচুয়াল লিগাল অ্যাসিসট্যান্সের মাধ্যমে এফজেডই–র ওই রিপোর্ট পেয়েছে বলে আদালতে জানিয়েছে জিট। সুপ্রিম কোর্টের পর্যবেক্ষণ, সেগুলি কোনও প্রামাণ্য তথ্য নয়। ফলে কোনও বিতর্ক ছাড়াই ওই তথ্য আদালতে প্রমাণ হিসেবে গ্রহণ করা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বেঞ্চের প্রধান বিচারপতি ইজাজ আফজল খান। এদিনই সকালে শরিফের আইনজীবী তথা পাক অর্থমন্ত্রী ইশাক দার জিটের রিপোর্ট নস্যাৎ করে শরিফের তরফে রিপোর্ট পেশ করেন। দার বলেছেন, জিট নিয়মভঙ্গ করে রিপোর্ট তৈরি করেছে। বিশেষজ্ঞদের একাংশের মতে, এর পর শরিফকে দুর্নীতির দায়ে কাঠগড়ায় আসতে নির্দেশ দিতে পারে বা তাঁকে ক্ষমতাহীন করে দিতে পারে পাক সুপ্রিম কোর্ট। অপর পক্ষ মনে করছে, জিটের এই ফাঁকভরা রিপোর্টের ফলে মামলাটিই খারিজ করতে পারে পাক সুপ্রিম কোর্ট। 
অন্যদিকে, সোমবার ইসলামাবাদের জাতীয় প্রেস ক্লাবে পিপিপির চেয়ারম্যান বিলাবল ভুট্টো শরিফের পদত্যাগ দাবি করে বলেন, তাঁর পদত্যাগে বরং গণতন্ত্র রক্ষা পাবে। বিলাবলের কটাক্ষ, ক্ষমতায় থাকার সব আইনি এবং নৈতিক অধিকার হারিয়েছেন শরিফ। পাকিস্তানের জনতা চাইছেন শরিফ সরে দাঁড়ান। তিনি আরও বলেন, শরিফের পরিবার আইনের শাসন না চাইলে তাঁর দল পিপিপি দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠার সব রকম চেষ্টা করবে। আগামী ২০১৮র নির্বাচনে পিপিপি ভাল ফল করবে বলেও আশা বেনজিরপুত্রের।

পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট।                                                         
  

জনপ্রিয়

বিদায় ২০০০, আসছে ২০০

বুধবার ২৬ জুলাই, ২০১৭

নীতীশের সিদ্ধান্তে অপমানিত শরদ 

বৃহস্পতিবার ২৭ জুলাই, ২০১৭

চীনে পরমাণু হামলা চালাতে পারে আমেরিকা

বৃহস্পতিবার ২৭ জুলাই, ২০১৭

Back To Top