আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ভারতীয় যাত্রীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করার অভিযোগ উঠল চীন বিমান সংস্থার বিমানের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে সাংঘাই পুডং আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে। ঘটনাটি নিয়ে ইতিমধ্যেই ভারতের বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ চীনের বিদেশমন্ত্রকের অন্তর্গত সাংঘাই বিদেশমন্ত্রকের দপ্তরে এবং পুডং আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে এ সংক্রান্ত নোটিস পাঠিয়েছেন। 
যদিও ভারত সরকারের এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে চীনের পূর্ব বিমানসংস্থা। চীনের সরকারি সংবাদপত্র জিনহুয়া সূত্রে জানা গিয়েছে, বিমান কর্তৃপক্ষ সিসি ক্যামেরার ফুটেজ খতিয়ে দেখেছে এ ধরনের কোনও  ঘটনাই বিমানবন্দরের মধ্যে বা বিমানে হয়নি। বিমান সংস্থা কর্তৃপক্ষ বলেন, ‘‌বিমান সংস্থার কর্মীরা বরং বিমান পরিষেবা নিয়ে খুবই যত্নশীল।’‌ বিমান কর্তৃপক্ষের দাবি, গোটা বিশ্ব জুড়ে তাদের সংস্থা যাত্রীদের সুন্দর পরিষেবা দিয়ে আসছে। তাই এ ধরনের অভিযোগ একেবারেই ভিত্তিহীন ও মিথ্যা। 
অন্যদিকে, উত্তর আমেরিকার পাঞ্জাবি সংগঠনের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর সন্তনাম সিং চাহাল তাঁর অভিযোগে জানান, তিনি চীনের বিমান সংস্থার বিমানে লক্ষ্য করেছেন বিমানে প্রস্থান করার প্রবেশ দ্বারে এক রূপান্তরকামী ভারতীয় যাত্রীকে অপমান করছেন বিমানের কর্মীরা। এমনকী ওই ভারতীয় যাত্রী হুইলচেয়ারে ছিলেন। সন্তনাম সিং গত ৬ আগস্ট চীনের পূর্ব বিমান সংস্থার বিমানে দিল্লি থেকে সানফ্রান্সিসকো যাচ্ছিলেন। সাংঘাইয়ের পুডং বিমানবন্দর থেকে তিনি একই বিমানসংস্থার বিমানে সানফ্রান্সিসকোর জন্য রওনা দেন। ওই বিমানেই তিনি এই ঘটনাটি দেখেন। এ বিষয়ে তিনি বিমান সংস্থাকে অভিযোগ জানাতে গেলে পাল্টা সংস্থার পক্ষ থেকে সন্তনাম সিংয়ের ওপরই চোটপাট করা হয়।  
সন্তনাম সিং বলেন, ‘‌ভারত–চীনের সীমান্ত বিতর্কের জের দেখা গেল চীনের বিমান সংস্থার বিমানেও। ভারতীয় যাত্রীদের প্রতি বিমান কর্মীদের ব্যবহারই তার প্রমাণ দিচ্ছিল।’‌ সন্তনাম বিদেশমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে ডোকা লা সমস্যার জেরে চীনের বিমানে ভারতীয় যাত্রীদের সঙ্গে হওয়া দুর্ব্যবহারের ঘটনাটি বিস্তারিতভাবে জানিয়েছেন। সন্তনাম চিঠিতে পরার্মশ দিয়ে বলেছেন, সুষমা স্বরাজ যেন ভারতীয় রূপান্তরকামী যাত্রীদের চীনকে এড়িয়ে গিয়ে সফর করার নির্দেশ দেন।   

Back To Top