ফারুক আবদুল্লার কথা বলছি না। ফারুক দার, শ্রীনগরে লোকসভা উপনির্বাচনের দিন সামরিক গাড়ির বনেটে বেঁধে যাঁকে মানব–‌ঢাল হিসেবে ব্যবহার করেছিল সেনা। এই কর্মটি যাঁর নির্দেশে হয়েছিল, সেই অফিসার লিটুল গগৈকে পুরস্কৃত করেছেন সেনাবাহিনীর প্রধান রাওয়াত, যদিও এ বিষয়ে সরকারি তদন্ত তখন চলছিল। একটি ইংরেজি টেলিভিশন চ্যানেলে লিটুল গগৈকে নিয়ে একতরফা বিতর্কের সময় সঞ্চালক মহোদয় প্রায় প্রস্তাব দিয়ে ফেলেছিলেন, ‘‌ভারতরত্ন’‌ খেতাব দেওয়া হোক। ঘটনা, ফারুক দার সন্ত্রাসবাদী নন। সাধারণ শান্তিপ্রিয় নাগরিক, যিনি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের বয়কটের ডাক উপেক্ষা করে সেদিন ভোট দিয়েছিলেন। সেনা–‌গাড়িকে আক্রমণ করতে গেলে অবশ্যই মৃত্যু হবে এক কাশ্মীরি যুবকের, সুতরাং উপযুক্ত ঢাল। দেশে–‌বিদেশে অনেক সমালোচনা হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকার তদন্তের নির্দেশ দিতে বাধ্য হয়। তবু এবং তখনই পুরস্কৃত। এবার কাশ্মীরের রাজ্য মানবাধিকার কমিশন যথাবিহিত তদন্ত করে বলল, সেনাবাহিনীকে কোনও নির্দেশ দেওয়ার এক্তিয়ার আমাদের নেই, কিন্তু রাজ্য সরকারকে দশ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে ফারুক দারকে। কী করবেন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি?‌ অবশিষ্ট জনপ্রিয়তা ধরে রাখার জন্য এই ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ইচ্ছা তাঁর থাকবে। পারবেন কি?‌ জোটসঙ্গী বিজেপি এমনিতেই উসখুস করছে, সরকার থেকে বেরনোর পথ খুঁজছে। ফারুক দারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া যে তাদের দুর্ধর্ষ ভাবমূর্তির সঙ্গে মানানসই হবে না, বিজেপি নেতারা জানেন। আবার, মেহবুবার হাত–‌পা আরও বেঁধে দিলে আর–একটা নির্বাচন করাই যে প্রায় অসম্ভব, বিজেপি নেতারা জানেন। যদি ক্ষতিপূরণ দেয় রাজ্য সরকার, জোটসঙ্গী হিসেবে বিজেপি–‌কেও কার্যত মেনে নিতে হয় যে, সেদিন মানবাধিকার লঙ্ঘন করা হয়েছে। বল আপাতত মেহবুবার কোর্টে। নিজের নির্বাচন কেন্দ্রে যেতে পারছেন না, এমন অবস্থা। কাশ্মীরের রাজনীতিতে টিকে থাকার কথা না ভেবে উপায় আছে তাঁর?‌ ‌‌‌‌

জনপ্রিয়

বিদায় ২০০০, আসছে ২০০

বুধবার ২৬ জুলাই, ২০১৭

নীতীশের সিদ্ধান্তে অপমানিত শরদ 

বৃহস্পতিবার ২৭ জুলাই, ২০১৭

চীনে পরমাণু হামলা চালাতে পারে আমেরিকা

বৃহস্পতিবার ২৭ জুলাই, ২০১৭

Back To Top