‌আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ কয়েক বছরে শিক্ষা বাবদ ব্যাঙ্কগুলোর অনাদায়ী ঋণ বেড়েই চলেছে। এখন বাড়তে বাড়তে ১৪২ শতাংশ হয়ে গিয়েছে। আইটি ক্ষেত্রে নিয়োগ কমে যাওয়া এবং নতুন শিল্প না আসায় শিক্ষান্তে চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা শঙ্কুচিত হয়েছে। তারই প্রভাব পড়েছে ব্যাঙ্ক ঋণে। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলো ইতিমধ্যেই কর্পোরেট জগতের ঋণ ফেরত না পেয়ে বিপুল অনাদায়ী বোঝা চেপেছে। তার উপর শিক্ষা ঋণের বোঝাও চাপল। সূত্রের খবর, অনাদায়ী ঋণের ৯০ শতাংশই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলোর ঘাড়ে চেপেছে। ২০১৬ সালের শেষে শিক্ষা ঋণ বাবদ অনাদায়ী ঋণের পরিমান ছিল ৬,৩৩৬ কোটি টাকা। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক জানিয়েছে ২০১৩ সালের মার্চ নাগাদ শিক্ষা ক্ষেত্রে অনাদায়ী ঋণের পরিমান ছিল ২,১৬৫ কোটি টাকা। ২০০০–০১ সাল থেকে দেশে শিক্ষা ঋণ দেওয়া শুরু হয়। পরে ইউপিএ সরকারের অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম শিক্ষা ঋণ দেওয়ার ওপর জোর দেন। 

জনপ্রিয়

বিদায় ২০০০, আসছে ২০০

বুধবার ২৬ জুলাই, ২০১৭

নীতীশের সিদ্ধান্তে অপমানিত শরদ 

বৃহস্পতিবার ২৭ জুলাই, ২০১৭

চীনে পরমাণু হামলা চালাতে পারে আমেরিকা

বৃহস্পতিবার ২৭ জুলাই, ২০১৭

Back To Top